সংবাদ শিরোনাম :
«» ঈদ যাত্রায় ভোগান্তির শঙ্কা «» জাতীয় শোক দিবসে টঙ্গী থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী «» নাটোরে শোক দিবসে মনোনয়ন প্রত্যাশী অাহম্মদ অালী মোল্লা’র খাবার বিতরন ও অালোচনাসভা «» জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্মরণে বাংলাদেশ মটর শ্রমিক লীগের শোক র‌্যালি «» গাজীপুর সিটির জরুন এলাকায় বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকী পালন করা হয়েছে «» বঙ্গবন্ধুই সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন—এমপি কুদ্দুস «» সমাজসেবা কার্যালয়ের অধীনে ভাতাভোগী স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাকে চেক বিতরণ «» গাজীপু‌রে ঝু‌টের গুদা‌মে আগুন «» কাউন্সিলর শাহ আলম রিপনের পক্ষ থেকে ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি «» হাজী সৈয়দ শাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উর্দ্ধমুখী ভবনের শুভ উদ্ধোধন

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকার বিরুদ্বে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীর নির্যাতনের অভিযোগ

কালিয়াকৈর(গাজীপুর)প্রাতনিধি:
গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার উত্তর দারিয়াপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকার বিরুদ্বে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীর নির্যাতনের অভিযোগ ওঠেছে।নিযাতিত ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা যায়,উত্তর দারিয়াপুর গ্রামের মো:মজনু মিয়ার মেয়ে মোসা: ফারজানা আক্তার(১১) উত্তর দারিয়াপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী।ঐ স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা মোসা:রেবেকা আক্তারের ২০/২২ মাস বয়সি একটা বাচ্ছা আছে। বাচ্ছাটি প্রতিদিন শিক্ষিকা নিয়মিত স্কুলে নিয়ে আছে এবং ফারজানা কে বাচ্ছাটি নিয়মিত রাখার জন্য উৎসাহিত করে।ফারজানাকে ক্লাশ বাদ দিয়ে শিশু বাচ্ছাটিকে রাখতে বাধ্য করে।বিষয়টি ফারজানা তার অভিভাবকদের জানালে অভিভাবকগন উপরন্ত বিষয়টি স্কুলের প্রধান শিক্ষককে জানায় এবং ইহার প্রতিকার চাই।প্রতিকার চাওয়ায় প্রধান শিক্ষক কোন কর্নপাত না করে উল্টাপাল্টা কথা বলে।২৫-০৬-১৮ইং সকাল ১০ঘটিকার সময় শিক্ষিকা মোসা:রেবেকা আক্তার ফারজানাকে অফিস কক্ষে ডেকে নিয়ে বিভিন্ন দরনের হুমকি প্রদান করে এবং কেচি দিয়ে মাথার এক গুছা চুল কেটে দেয়।এতে ফারজানা আক্তার(১১) স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে।সরেজমিনে দেখা যায়, স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা মোসা:রেবেকা আক্তার ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষকের স্ত্রী। ঐ স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা মোসা:রেবেকা আক্তার তার বাচ্ছাটি স্কুলের অফিস রুমে একটি টেবিলের উপর ঘুম পারিয়ে রেখেছে। সহকারী শিক্ষিকা মোসা:রেবেকা আক্তার বলেন আজ অনেক দিনপর বাচ্ছাটি স্কুলে নিয়ে এসেছি।কিন্তু স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা বলেন ম্যাডাম মাঝে মধ্যেই বাচ্ছাটি স্কুলে নিয়ে আছে।উপজেলা শিক্ষা কমকর্তা শিখা বিশ্বাস বলেন বাচ্ছা স্কুলে নিয়ে আসার কথা এর আগে শুনে ছিলাম তখন থেকেই সহকারি শিক্ষিকা মোসা:রেবেকা আক্তারকে বাচ্ছা স্কুলে না নিয়ে আসতে বলা হয়েছে।কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা মো:সাইফুল ইসলাম বলেন এব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি তদন্তে সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিব।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *