সংবাদ শিরোনাম :
«» গাজীপুর ১ আসনে আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এর প্রতি ওয়ার্ডে নৌকার প্রচারনা «» গাজীপুর ২ আসনে জাহিদ আহসান রাসেল এর নৌকার ব্যাপক প্রচারণা «» ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট যাত্রীদের চরম ভোগান্তি «» শার্শায় নৌকা প্রতীককে জয়ী করার লক্ষে উপজেলা ছাত্রলীগের তলবী সভা «» শার্শা থানা পুলিশের নির্বাচনী মহড়া «» গাজীপুর ২ আসনে জাহিদ আহসান রাসেল এমপি’র নৌকার প্রচারণায় খাদিজা রাসেল «» গাজীপুরে-২ আসনে নৌকার পক্ষে জাতীয় শ্রমিক লীগের মিছিল «» পত্র-পত্রিকায় রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ায় বেনাপোল স্থল বন্দরে সচল লোড আনলোড «» গাজীপুরে ছুরিকাঘাতে নিহত ১ «» বেনাপোলের সীমান্তে ভারত থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশের সময় ৯ জন আটক ও বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল জব্দ

গাজীপুরে সবুজ হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন করেন এলাকাবাসী।

রেজা চৌধুরী,গাজীপুর প্রতিনিধি:
গাজীপুর মহানগর  ৭ নং ওয়ার্ড জরুন এলাকায় রাসনা নীট ওয়্যার লিঃ ব্যবস্থাপনা পরিচালক সবুজ পাঠান(২৭) হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।রবিবার( ৯সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায়  জরুন এলাকার, কোনাবাড়ী কাশিমপুর মহাসড়কের দুই পাশে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করেন এলাকাবাসী।মানববন্ধনে সম্মিত প্রকাশ করেছেন অত্র এলাকার কাউন্সিলর কাউসার আহম্মেদ,মহিলা কাউন্সিলর বেণু বারেক সহ এলাকার সর্বস্তরের জনগণ।কাউসার আহমেদ বলেন,সবুজ এলাকার অত্যন্ত  শান্ত প্রিয় ছেলে ছিলেন তার এই হত্যা কোনভাবে মেনে নেওয়া যায়না।আমরা এলাকাবাসী চাই সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে হত্যাকারীদের আইনের আওতাধীন এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।সবুজের মা ফুলজান বেগম বলেন তোমরা আমার সবুজরে ফিরায়ে দাও,কে আমাকে দুধ কিনে দিবে,আমাকে কে মা বলে বাসায় এসে ডাকবে মা ও মা। তোমরা আমার বাবা সবুজ কে এনে দাও।সবুজের বাবা শাহজাহান পাঠান বলেন আমি আমার ছেলের খুনিদের ফাঁসি চাই। এ সময় সবুজের বাবার কান্নায় আশেপাশের বাতাস  যেন ভারী হয়ে যায়। সেলিম পাঠান বলেন আমি আমার ভাইয়ের খুনিদের ফাঁসি চাই।পারিবারিক সূত্রে জানাজায়, কোনাবাড়ী এলাকার(সাবেক মেম্বার)দুলাল এর মেয়ে    রুনা আক্তার। রুনা স্বামীর সাথে সম্পর্ক বিচ্ছেদ হওয়ার পরে সবুজের সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে অবৈধ প্রেমের সম্পর্ক হয়।এক পর্যায় তারা শারীরিক সম্পর্কে জরিয়ে পরে। ৩০ আগষ্ট আনুমানিক রাত ৮ টার সময় সবুজ পাঠানের  মোবাইলে ফোন করে  তাকে বাসা থেকে  ডেকে নিয়ে যায় রুনা আক্তার। রুনা আক্তার ঢাকার তুরাগ থানার আশুলিয়া এলাকায় থাকেন।পরিবারের দাবী রুনা রাতে তার বাসায় ডেকে নিয়ে যায় তারপর সে সবুজের কাছে মোটা,অংকের টাকা ধাবী করে।সবুজ দিতে অসীকার করলে সেখানেই  পরিকল্পিত ভাবে ঠান্ডা মাথায় খুন করা হয় সবজকে। পরে  সবুজ পাঠানের স্ত্রী বাপ্পী আক্তার বাদী হয়ে ২রা সেপ্টেম্বর ঢাকার তুরাগ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যা মামলায় দায়ের কৃত  আসামীরা হলেন,স্হানীয় সাবেক দুলাল মেম্বারের মেয়ে রুনা আক্তার, রুনার ডিভোর্স  কৃত স্বামী সত্তর শেখ, রুমার ভাই আরাফাত, চাচা আব্দুল মান্নান,আব্দুল মান্নানের ছেলে সিয়াম ও শফি শেখ।নিহত সবুজ পাঠানের বোন সুমনা আক্তার শাহিদা জানান,আমি আমার ভাই হত্যার  বিচার চাই।তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আপনাদের বিভিন্ন পত্র  পত্রিকায় সবুজ হত্যার কথা আসলে ও এখনো ঠাণ্ডা মাথার খুনীদের কে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।আমরা প্রশাসনের কাছে দাবী করছি দ্রুত সবুজের হত্যাকারীদের কে গ্রেপ্তার করে ফাসিঁ দেওয়া হোক।যাতে করে এভাবে আর কার মায়ের বুক খালী না হয়।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *