সংবাদ শিরোনাম :
«» গাজীপুর ১ আসনে আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এর প্রতি ওয়ার্ডে নৌকার প্রচারনা «» গাজীপুর ২ আসনে জাহিদ আহসান রাসেল এর নৌকার ব্যাপক প্রচারণা «» ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট যাত্রীদের চরম ভোগান্তি «» শার্শায় নৌকা প্রতীককে জয়ী করার লক্ষে উপজেলা ছাত্রলীগের তলবী সভা «» শার্শা থানা পুলিশের নির্বাচনী মহড়া «» গাজীপুর ২ আসনে জাহিদ আহসান রাসেল এমপি’র নৌকার প্রচারণায় খাদিজা রাসেল «» গাজীপুরে-২ আসনে নৌকার পক্ষে জাতীয় শ্রমিক লীগের মিছিল «» পত্র-পত্রিকায় রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ায় বেনাপোল স্থল বন্দরে সচল লোড আনলোড «» গাজীপুরে ছুরিকাঘাতে নিহত ১ «» বেনাপোলের সীমান্তে ভারত থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশের সময় ৯ জন আটক ও বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল জব্দ

রাজধানীতে বিএনপির সমাবেশে ৭ দফা দাবি

দেশান্তর ডেস্ক ঃ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির ৭জনসভার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। রোববার দুপুর ২টায় পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে জনসভার অনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, তারেক রহমানের মামলা প্রত্যাহার, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন, ভোটের আগে সংসদ ভেঙে দেয়া, প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ, নির্বাচনে সেনা মোতায়েন ও নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনসহ বিভিন্ন দাবিতে এ জনসভা করছে বিএনপি।২২টি শর্তে পুলিশের অনুমতি পাওয়ার পর বিএনপি এ সমাবেশ করছে। এর আগে পুলিশের অনুমতি না পাওয়ায় দুই দফায় জনসভার তারিখ পেছানো হয়।বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেন, আজকের সমাবেশে মূলত দুইটি বিষয় তুলে ধরা হবে। একটি হলো, আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের দাবি নামা তুলে ধরা, আর সংক্ষেপে নিজেদের ১২দফা লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরা, যেখানে থাকবে যে ভবিষ্যতে বিএনপি কি করতে চায় বা ক্ষমতায় আসলে কিভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা করবে, তার বর্ণনা।তিনি বলেন, আমরা এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে আমাদের দাবি নামাগুলো ঘোষণা করিনি।এ কারণে আমাদের সাত দফা দাবি ঘোষণা করা হবে। যে সাত দফা দাবি আজ ঘোষণা করবে বিএনপি, তার মধ্যে রয়েছে,

•নির্বাচনের সময় একটি নিরপেক্ষ সরকার থাকতে হবে

•সংসদ ভেঙ্গে দিতে হবে

•নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে

•ম্যাজিস্টেসি ক্ষমতা দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে

•ইভিএম পদ্ধতি বাতিল করতে হবে বা চালু করা যাবে না

মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমাদের এর অতিরিক্ত দাবি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং সেই সঙ্গে হাজার হাজার যে নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে এবং যারা কারাগারে রয়েছে, সেই সব রাজবন্দীর মুক্তি চাই। সেই সঙ্গে নির্বাচনের সময় নতুন করে যেন আর মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের আর গ্রেপ্তার করা না হয়। কারণ বেগম জিয়ার মুক্তি ছাড়া একটি সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় বলে আমরা মনে করি।দুপুরে জনসভা শুরু হলেও সকাল থেকেই নেতাকর্মীরা উদ্যানে আসতে শুরু করে। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত সভামঞ্চে দেশাত্মবোধক ও দলীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। বেলা ২টার আগেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশস্থল যেন জনসমুদ্রে রূপ নেয়।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *