সংবাদ শিরোনাম :
«» টঙ্গীতে সড়ক দূর্ঘটনায় সাইকেল আরোহি জজ মিয়া নিহত। «» কালিয়াকৈরে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠিদের মাঝে ৪৭টি বকনা গরু বিতরণ «» আওয়ামীলীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধো ডাঃ আইনুল হক হত্যা মামলার রায়ে হতাশা ও বিস্ময় জানিয়ে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন «» গাজীপুরে আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল «» শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ, গাজীপুর মহানগর শাখা কমিটির অনুমোদন «» টঙ্গীতে আ’লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা «» আনোয়ার হোসেনকে আহবায়ক নির্বাচিত করায় এলাকাবাসীর সন্তোষ প্রকাশ «» এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানদের বৈঠক ২৪ সেপ্টেম্বর «» গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীর মৃত্যু «» গাজীপুরে ট্রেনের যন্ত্রাংশ খুলে ৬ কিমি রেললাইনের ক্ষতি

ভিয়েতনাম-কাতার ফেরত মোট ৮৩ জন বাংলাদেশিকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ

এস,এম,মনির হোসেন জীবন :

ভিয়েতনাম ও কাতার থেকে ফেরত মোট ৮৩ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে গ্রেফতার করা হয়েছে।  আজ মঙ্গলবার সকালে তুরাগ থানা পুলিশ তাদেরকে জিঞ্জাসাবাদ শেষে ঢাকার আদালতে পাঠিয়েছে। ডিএমপির তুরাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরুল মোত্তাকিন আজ মঙ্গলবার গনমাধ্যমকে এতথ্য নিশ্চিত করেছেন। ওসি জানান, ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে ভিয়েতনাম ফেরত ৮১জন ও কাতার ফেরত ২ জনসহ মোট ৮৩জন বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা ওই দেশে অবস্থানকালে অপরাধ করেছেন। পুলিশের এ কর্মকর্তা আরো বলেন, ভিয়েতনাম থেকে তাদের অপরাধের বিষয়টি জানানো হয়েছিল। সে কারণে ৮৩ জনকে সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে (৫৪ ধারায়) গ্রেফতার দেখিয়ে আজ সকালে তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তুরাগ থানা পুলিশ গনমাধ্যমকে আরো জানান, তারা সেখানে কোনো অপরাধে জড়ানোয় জেলখানায় ছিলেন। সেখান থেকে পরে তাদের বাংলাদেশে পাঠানো হয়। তবে, তারা ঠিক কী ধরনের অপরাধ করেছেন, তা এখনও আমরা জানতে পারিনি। তাই সন্দেহজনক হিসেবে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এবিষয়ে জানতে ডিএমপির উত্তরা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) নাবিদ কামাল শৈবাল গনমাধ্যমকে জানান, ভিয়েতনাম ও কাতার থেকে এসব বাংলাদেশি নাগরিককে ঢাকায় ফেরত পাঠানো হয়। তার মধ্যে ভিয়েতনাম থেকে ৮১জন ও কাতার থেকে ২জন সহ মোট ৮৩ জনকে আজ সন্দেহজনক হিসেবে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তিনি জানান, করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে তাদের সবাইকে উত্তরা দিয়াবাড়ী ক্যাম্পে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। এরপর সোমবার (৩১ আগস্ট) তাদের কোয়ারেন্টিন শেষ হয়। এরমধ্যে ভিয়েতনামে যারা অপরাধ করেছেন, তাদের বিষয়ে বাংলাদেশ পুলিশের কাছে অভিযোগ আসে। সে মতে আজ মঙ্গলবার তাদের মধ্যে অভিযুক্ত ৮৩ জনকে আমাদের কাছে হস্তান্তর করা হলে পরবর্তীতে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *