সংবাদ শিরোনাম :
«» ক্ষমতার বলে হারিয়ে যাচ্ছে বগুড়া ধুনটের মথুরাপুর বাজার «» উত্তরায় থেকে অপহৃত ব্যবসায়ী মিহির রায় দক্ষিণখান থেকে উদ্ধার, দুই অপহরণকারী গ্রেফতার «» গাজীপুরবাসী বিনামূল্যে করোনার টিকা পাবে, মেয়র এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম «» শহীদ আসাদ দিবসে এনাম ডেন্টাল কেয়ার শহীদ আসাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন «» ময়মনসিংহের ত্রিশালে বাস-সিএনজি সংঘর্ষে এক নারী নিহত ও সিএনজি ড্রাইভারসহ অপর ৫ জন গুরুতর আহত «» প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ «» টঙ্গীতে ৫দিনব্যাপী স্কাউট সমাবেশের সমাপনী অনুষ্ঠান «» টঙ্গীতে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উপলক্ষে আনন্দ র‌্যালী «» গাজীপুর মহানগর চাপুলিয়া গাঁজাসহ দুইজন গ্রেপ্তার «» বঙ্গবন্ধুকে বেশি বেশি জানতে হবে: আইজিপি বেনজির আহমেদ

ঢাকায় চার ঘণ্টায় ৯ বাসে অগ্নিকাণ্ড, জনমনে আতঙ্ক

দেশান্তর ডেস্ক ঃ

বৃহস্পতিবার ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচন চলাকালে রাজধানীতে পৃথক নয় স্থানে চার ঘণ্টায় নয় বাসে সিরিজ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। নির্বাচনের দিন এতগুলো বাসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা রহস্যের জন্ম দিয়েছে। একইসঙ্গে জনমনে আতঙ্কও তৈরি করেছে। এছাড়া অগ্নিকাণ্ডের ফলে শহরজুড়ে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট। এতেও নগরবাসীকে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও প্রত্যক্ষদর্শীদের দেয়া তথ্যানুযায়ী- শাহজাহানপুর, মতিঝিলের মধুমিতা সিনেমা হল, পূবালী ফিলিং স্টেশনের কাছে, পীর ইয়ামেনী মার্কেট, নাইটিঙ্গেল মোড়, আজিজ সুপার মার্কেট, পুরান ঢাকার নয়াবাজার, ভাটারায় কোকাকোলা মোড় এবং সচিবালয়ের ৫নং গেটের কাছাকাছি বাসগুলোয় আগুন দেয়া হয়। এসব ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ অফিসের ডিউটি অফিসার।

পুলিশ সূত্র জানায়, দুপুর ২টায় রজনীগন্ধা পরিবহনের একটি বাস পল্টন মোড়ে যাত্রী নিয়ে প্রেস ক্লাবের সামনে আসতেই গাড়ির পেছনে আগুন দেখা যায়। যাত্রীদের কেউ কেউ আগুন নেভানোর চেষ্টা করলেও কাজ হয়নি। কয়েক মিনিটের মধ্যেই পুরো বাস পুড়ে যায়। এর মাত্র আধা ঘণ্টা আগে আগুনের ঘটনা ঘটে শাহজাহানপুরে। সেটাই দিনের প্রথম ঘটনা। তার কিছুক্ষণ পর শাহবাগে আজিজ সুপার মার্কেটের সামনেও একটি বাসে আগুন লাগানো হয়।

ফায়ার সার্ভিস জানায়, দুপুর দেড়টা থেকে প্রায় ঘণ্টা খানেকের মধ্যে ৬টি বাসে আগুন লাগে। তবে সবশেষ ঘটনাটি ঘটেছে, বিকাল সাড়ে চারটার দিকে কোকাকোলায়। খবর পেয়ে সবখানেই ছুটে গেছেন দমকল কর্মীরা। চেষ্টা করেছেন দ্রুত আগুন নিভিয়ে ক্ষয়ক্ষতি কমানোর।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (মিডিয়া) ওয়ালিদ হোসেন বলেন, দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করতে কোনো মহল পূর্বপরিকল্পিতভাবে এসব ঘটনা ঘটিয়েছে। যাত্রীবেশে বাসে উঠে আগুন লাগিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। কারা এর সঙ্গে জড়িত তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কয়েকটি ঘটনাস্থলের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পাওয়া গেছে। সেগুলো পর্যালোচনা করা হচ্ছে। দুষ্কৃতকারীদের চিহ্নিত করা হবে। কেউ ছাড় পাবে না। সিরিজ অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মামলা করবে পুলিশ।

পল্টন ও মতিঝিল থানা এলাকায় সবচেয়ে বেশিসংখ্যক চারটি বাসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এদিন কাছাকাছি সময়ের মধ্যে বাসগুলো জ্বলে ওঠে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশের মতিঝিল জোনের সহকারী কমিশনার জাহিদুল ইসলাম বলেন, অগ্নিকাণ্ডের ধরন দেখে পূর্বপরিকল্পিত ঘটনা বলেই  আমাদের মনে হচ্ছে । বিস্তারিত তদন্ত সাপেক্ষে জানা যাবে ।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *