সংবাদ শিরোনাম :
«» টঙ্গীতে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার এমপি’র ১৭তম শাহাদাত বার্ষিকীতে দোয়া ও ইফতার মাহফিল «» বেস্ট অফ দ্যা মিলেনিয়াম এসএসসি ২০০০ব্যাচ বাংলাদেশ এর উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» গাজীপুরের টঙ্গীতে সেবক সংগঠনের উদ্যোগে মটর শ্রমিকদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ «» অন্তিম আলো ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেন এর পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» যশোরের শার্শা থেকে ০৪ কেজি গাঁজা সহ মহিলা আটক «» ২৩ রমজানেও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সেহরি বিতরণ অব্যাহত «» কমলাপুরের ছিন্নমূল মানুষদের জন্য সাহরীর ব্যবস্থা করল বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ «» বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ইফতার বিতরণ «» বেনাপোলে কেজি দরে তরমুজ বিক্রি, ক্রেতাদের ক্ষোভ «» ময়মনসিংহের ত্রিশালে পথশিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশনের ৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

নবীনগর সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকিl

আতাউর রহমান কাজল ঃ 
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু নামে এক সাংবাদিককে হুমকি প্রদানের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরপর থেকে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তিনি।
একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন তিনি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুর রশীদ।
সাংবাদিক অপু দৈনিক কালেরকণ্ঠের নবীনগর উপজেলা প্রতিনিধি ও স্থানীয়ভাবে প্রকাশিত ‘নবীনগরের কথার’ সম্পাদক। তিনি বলেন, ‘রোববার রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে মাঝিকাড়া গ্রামের ১৫-২০ টি ছেলে আমার বাসার সামনে আকস্মিকভাবে এসে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। নবীনগরে সাংবাদিকতা করতে হলে, স্থানীয় এমপি এবাদুল করিমের বিরুদ্ধে কিছু লেখা যাবে না, কোনো টকশোতে এমপির বিরুদ্ধে কথা বলা যাবে না। ভবিষ্যতে এমপির বিরুদ্ধে যদি পত্রিকায় কিছু লেখা হয়, কিংবা টকশোতে কিছু বলা হয়, তাহলে আমার হাত পা কেটে নেয়া হবে বলে চিৎকার করে হুমকি দিতে থাকে এবং আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও করতে থাকে।’
সাংবাদিক অপু আরও বলেন, ‘নবীনগর থানার (ওসি) আমিনুর রশীদকে বিষয়টি জানালে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে পরিদর্শক (তদন্ত) নূরে আলমের নেতৃত্বে ৫-৬ জন এসআইকে দ্রুত নবীনগর আদালত সড়কে অবস্থিত আমার বাসার সামনে পাঠান। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই উশৃঙ্খল যুবকরা পালিয়ে যায়।’
সাংবাদিকদের ওপর এমন হামলা এবং প্রতিকার না পাওয়া বাংলাদেশে এখন সাধারণ ঘটনায় পরিনত সাংবাদিকদের ওপর শুধু হামলা নয়, তাদের বিভিন্ন সময় হত্যাও করা হয়েছে। কোনো অপরাধী চক্র বা দুর্নীতিবাজ চক্রের বিরুদ্ধে যখনই কেউ কাজ করতে গিয়েছে, হয় তারা লাঞ্ছিত হয়েছেন নয়তো জীবন দিতে হয়েছে। এইসব ঘটনার কখনই কোনো দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়নি। ফলে অন্যরাও সাংবাদিক নির্যাতনে উৎসাহিত হয়েছে। নির্যাতনে জোরালো কোনো প্রতিবাদ হয় না৷

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *