সংবাদ শিরোনাম :

গাজীপুরে এই প্রথম সবচেয়ে বড় বাজেট ঘোষণা করলেল মেয়র এড. জাহাঙ্গীর আলম

মো: রফিকুল ইসলাম রফিক:
গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ২০২০-২০২১ অর্থবছরের প্রায় ২১ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করলেন সিটি মেয়র এড. জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন- বাংলাদেশের অনসব সিটি কর্পোরেশনের চেয়ে এ বাজেট বড় বাজেট। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের গাছা আঞ্চলিক অফিসে উক্ত বাজেট ঘোষণা করেন তিনি। অনুষ্ঠানে গাজীপুর সিটি মেয়র এড. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ২০২০-২০২১ অর্থবছরে সবচেয়ে বড় বাজেট এবার ঘোষণা করা হল । এই বাজেটের পরিমাণ ২০ হাজার ৯শত ৮৬ কোটি ২৪ লক্ষ টাকা। ২০১৮ সালে মেয়র জাহাঙ্গীর এর বাজেট প্রথম বাজেট ছিল ২৪০ কোটি টাকা। স্বাধীনতার ৫০ বছরে গাজীপুর সিটি কোন মাস্টার প্ল্যান ছিল না । এবারই প্রথম মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা এর নির্দেশে ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম এমপি’র তত্ত¡াবধানে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মাস্টার প্ল্যান করা হয়েছে।

বিভিন্ন দাতা সংস্থা, সরকার ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এ অর্থের যোগান দিবে। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে ১০টি অঞ্চলে ১০টি খেলার মাঠ ও ১০ টি পার্ক প্রতিষ্ঠা করা হবে। গাজীপুর ও পুবাইল পর্যন্ত ৭০ কি.মি ১২ লেনের রাস্তা নির্মাণ হবে। এই রাস্তায় রেল লাইনের উপর ৫টি ফ্লাইওভার গড়ে তোলা হবে। বন্যা নিয়ন্ত্রণে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকার খাল ও নদী খনন করে স্থায়ীভাবে বন্যা নিয়ন্ত্রণ করা হবে। আগস্ট মাসের পর বেকারত্ব দূরীকরণে মহানগরের বেকার মানুষদের চাকুরী ও ব্যবসার মাধ্যমে বেকারত্ব সমস্যার সমাধান করা হবে। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৩বছর পূর্তী উপলক্ষ্যে মেয়র বলেন- ২০১৮ সালে যে কমিটমেন্ট দিয়েছিলাম তার চেয়ে বেশি বাস্তবায়ন করেছি । মাননীয় প্রধানমন্ত্রী’র ঘোষণা অনুযায়ী গ্রামকে শহর করার কাজ করেছি। অসমাপ্ত কাজকে সমাপ্ত করাই আমার লক্ষ্য। চলমান মহামারীতে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রতিদিন ৩৪ হাজার টিকা প্রদান করা হচ্ছে বলে মেয়র জানান। গাজীপুর মহানগরের জনগণের সেবায় ৪শত ভলেন্টিয়ার কাজ করছে।

এদের বেতন ভাতা সরকারী ভাবে দেওয়া হচ্ছে না । ব্যক্তি উদ্যোগে তাদের বেতন ভাতা দেওয়া হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর সময়ে মুশতাক ছিল, বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র বেলায়ও মুশতাক আছে। আমাদের ভবিষ্যতেও মুশতাক থাকবে। আমি গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত মেয়র, আমার সময়েও বিরোধী দল থাকবে। টঙ্গী গাজীপুর চৌরাস্তা মহাসড়কের বেহাল দশা সম্পর্কে তিনি বলেন- এর দায় গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নয়। সড়ক ও জনপদ বিভাগ এর পুরো দায়িত্ব বহন করবে। মহাসড়কে লক্ষ মানুষের দূর্ভোগের জন্য মেয়র, কাউন্সিলর কেউ দায়ি নয়। আমাদের সাথে আলোচনা করলে ৭০ভাগ সমাধান করা সম্ভব। এসময় উপস্থিত ছিলেন- গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহ আলম রিপন। ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম। ওয়ার্ড সচিব ওমর ফারুক আবির সহ কাউন্সিলর, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর, গণমাধ্যম কর্মী, সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ও মুরব্বীদের উপস্থিতিতে বাজেট ঘোষণা অনুষ্ঠানে সকল পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন মেয়র এড. জাহাঙ্গীর আলম।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *