সংবাদ শিরোনাম :

বাংলার ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুর নাম স্বর্ণাক্ষরে লিখা থাকবে ..আলহাজ্ব মো: আনোয়ার হোসেন

মো: রফিকুল ইসলাম রফিক:
জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নাম স্বর্ণাক্ষরে লিখা থাকবে বাংলার ইতিহাসে। তিনি একজন আদর্শবাদী নেতা ছিলেন। এদেশের স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করে আমাদেরকে স্বাধীনতা এনে দিয়েছিলেন। তোমরা বঙ্গবন্ধুকে জানো, বোঝো। তোমাদেও এখন উপযুক্ত সময় জানার, পড়ালেখা ঠিক রেখে খেলাধুলায় ও ইতিহাস জানার অধিকার তোমাদের আছে। মাদকে নয়, নিজেকে পরিপূর্ণ মানুষ হিসাবে গড়ে তুলো। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে অনন্য এক ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এড. জাহাঙ্গীর আলম। তিনি প্রতিটি ওয়ার্ডে গরু ও নগদ অর্থ দিয়ে সবাইকে সহযোগীতা করেছেন , সেই লক্ষ্যে যেনো কোন প্রকার চাদাবাজি না হয় । তোমরাও নিজেদের উদ্যোগে আজকের এই আয়োজনকে সাফল্য মন্ডিত করায় ৪৭নং ওয়ার্ড বাসীর পক্ষ্য থেকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। সোমবার বকিালে টঙ্গীর মরকুন কবরস্থান মাঠ প্রাঙ্গনে মরকুন ইউনটি ছাত্রলীগরে উদ্যগেে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ৪৭নং ওয়ার্ড

 

 

 

 

 

 

 

আওয়ামী লীগের আহবায়ক আলহাজ্ব মো: আনোয়ার হোসেন ছাত্রলীগ ও উপ্িস্থত যুব সমাজের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন। এসময় বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন- আহসান উল্লাহ ৪৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সদস্য সচিব। খান মো: বাবুল সেবক এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। আহবায়ক সদস্য শাহিন সিকদার। যুবলীগের আহবায়ক মনির হোসেন সাগর,যুগ্ন আহবায়ক কিরণ আহম্মদে।মো: রবিউল্লাহ। মহিলা আওয়মীলীগ নেত্রী লাভলি বেগম। মো: আল আমিন হোসেন সার্বিক তত্তাবধানে মরকুন উইনিট ছাত্রলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী নাহিদ সিকদার জিসান। তাছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মরকুন উইনিট ছাত্রলীগের প্রথম দাস , নায়িম ইসলাম, নাহিদ সর্দার, তানভির আহম্মেদ ও ইমরান হোসেন সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে বক্তারা বলেন- । আজকের এই বাংলাদেশে মেট্রারেল উদ্ধোধন হয়েছে,করোনা কালিন সময়ে স্বাস্থ বিভাগে যথাসথ ব্যাবস্থা নেওয়া হয়েছে। দেশের মানুর শান্তিপূর্ন ভাবে বসবাস করছেন। আলোচনা সভা শেষে ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টে বঙ্গবন্ধু ও তার সপরিবারে নিহত সকল শহিদদের আত্বার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত শেষে তবারক বিতরণ করা হয়।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *