সংবাদ শিরোনাম :

পূবাইলের মাঝুখানে একতা ঝুট র্মাকেটে আগুন, ৭ কোটি টাকার মালামাল পুড়ে ছাই

মো: রফিকুল ইসলাম রফিক:
গাজীপুরের পুবাইল মাঝুখান বাজার স ংলগ্ন একতা জোট মার্কেটে আগুনে প্রায় সাত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা। একতা ঝুট ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী র্মাকেট’র সভাপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান টিটু সাক্ষাতকারে বলেন- বিভিন্ন এলাকা থেকে গুডাউন ছেড়ে দিয়ে আমাদের এ মার্কেটে গোডাউন নিয়েছে নিরাপদ ও গাড়ি চলাচলের ব্যবসার সুবিধার্থে, মার্কেট চালু হওয়ার দুই বছরের মধ্যে প্রথমে উত্তর পার্শ্বে আগুন লাগে আর এখনকার আগুনে পুরো মার্কেট পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এটা আমাদের জন্য একটা অশুভ লক্ষণ। ব্যবসায়ীরা পথে বসে গেছেন।

সিনি: সহ-সভাপতি মো. খলিলুর রহমান বলেন- মার্কেটের শুরুতেই অন্যান্য এলাকার ব্যবসায়ীরা আমাদের এই মার্কেটে ব্যবসা স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছে। এ অবস্থায় হঠাৎ আগুন লেগে মাত্র কয়েকটি ঘর ছাড়া পুরো মার্কেট পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আটটি ইউনিটের কয়েক ঘন্টা অভিযানের পর আগুন নিভাতে সক্ষম হলেও মঙ্গলবার দুপুরে আবারো পুড়া ঝোটের ভিতর থেকে আগুনের সূত্রপাত দেখা দিলে তাৎক্ষনিক ফায়ার সার্ভিস খবর দিলে আগুন নিভাতে সক্ষম হয়েছে। মার্কেটে আগুন আতঙ্ক বিরাজ করছে। ব্যবসায়ীর নিরুপায় হয়ে গেছে। ব্যবসায়ীদের মধ্যে মো: হুমায়ুন এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন- আমি খুবই বিপদগ্রস্ত, চোখে মুখেও অন্ধকার দেখছি। একদিকে স্ত্রী মেডিকেলে ভর্তি চিকিৎসার জন্য গুনতে হচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। এরই মধ্যে গোডাউনে প্রায় ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই হযে গেছে। নতুন করে ঘর তৈরি করার মতো আমার কোন সাধ্য নেই, পথে বসে গেছি। কোন স্বহৃদয়বান ব্যক্তিদের সহযোগীতা ছাড়া ব্যবসা করার মতো কোন উপায় নেই, এমনটাই বললেন তিনি।

তাছাড়াও অন্যান্য ব্যবসায়ীদের মধ্যে রয়েছে মোস্তাফিজুর রহমান টিটু, সোলেমান, রঞ্জু নরকার, ফরিদ, মুসা, রতন মেম্বার, মাসুদ, মালেক, মিজান, কামাল, স্বপন বেপারী, খোকন, গিয়াস উদ্দিন, শাহীন, মালেক, কাউছার সহ প্রায় ৫৭ জনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সকল মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে ফায়ারসার্ভিস কে দেওয়া তথ্যানুযায়ী প্রায় ৭ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। উল্লেখ্য গত রবিবার দুপুরে উক্ত মার্কেটে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। মুহুর্তেও মধ্যেই পূর্ব পশ্চিম মার্কেটে আুগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। ফায়ার সার্ভিসের ৮টি টিমের উপস্থিতিতে দ্রুত গতিতে আগুন নিভাতে সক্ষম হলেও ততক্ষণে পূর্ব পশ্চিমের দুটি মার্কেটই পুরে ছাই হয়ে গেছে। শুধু সামনের দুটি গোডাউন ব্যতীত। খবর পেয়ে প্রশাসনের উর্ব্ধতন কর্মকর্তা স্থানীয় প্রতিনিধি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ব্যসায়ীওে সান্তনা দেন। ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তারা তাৎক্ষনিক আগুন লাগার কোন কারণ জানা যায় নি, তদন্ত সাপেক্ষে বিস্তারিত জানা যাবে।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *